গাইবান্ধায় সহঃ শিক্ষক নিয়োগ ২০১৮ প্যানেল প্রত্যাশীদের মানবিক আবেদন

মাসুম লুমেনমাসুম লুমেন
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০২:১১ PM, ১১ জুন ২০২০

আমিনুর রহমান,নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

আবেদনটি হুবহু তুলে ধরা হলোঃ

মানবতার কান্ডারী, জননেত্রী, দেশরত্ন  মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আসসালামু আলাইকুম। মুজিব বর্ষের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। আশা করি আপনি ভাল আছেন। আর ভাল থাকবেন না কেন? ১৮ কোটি জনগণের ভালবাসা আর শ্রদ্ধাবোধ যার প্রতি তিনি তো ভাল থাকবেন। আপনি পুরো দেশের কর্ণধার। আপনার আঁচলেই আমাদের পরম শান্তি।  আপনার দয়ার সাগর থেকে কেউ বাদ যায়না। আপনার কারনে ১২ লক্ষ রোহিঙ্গা আশ্রয় পেয়েছে। একসাথে ২৬ হাজার রেজিস্টার প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ হয়েছে। আজ বিশ্ববাসীর কাছে মানবতার মা হিসাবে আপনি পরিচিত। মায়ের বুকে অগাধ ভালবাসা থাকায় লাভ করেছেন “মাদার অব হিউমিনিটি”। তারা মায়ের আঁচলে শান্তির স্থান খুঁজে পেয়েছেন। 

মাগো- আজ আমরা ৩৭ হাজার প্যানেল প্রত্যাশী সহকারী শিক্ষক পদে ভাইভা অংশগ্রহণকারী’রা  অসহায় ও মানবেতর জীবনযাপন করছি। আপনার একটি মানবিক সিদ্ধান্ত চেয়ে আশার স্বপ্ন বুনছি। আমাদের পরিবারের করুণ দৃষ্টি ও নিরবে নিভৃতে কান্নার আওয়াজ আমাদের জীবন তিলেতিলে নিঃশেষ করে দিচ্ছে। যেদিকে তাকাই অবহেলা, তিরস্কার আর বঞ্চনা ছাড়া কিছুই পাইনা। মাগো- আপনিই আমাদের একমাত্র আশা ভরসার স্থল। আপনি মুখ ফিরিয়ে নিলে আমাদের মৃত্যু ছাড়া কোন পথ খোলা থাকবেনা। তখন আমরা হয়ে যাবো জীবন যুদ্ধে এক পরাজিত সৈনিক, যারা শি ক্ষিত হয়েও এই দেশের বোঝা হয়ে থাকবে চিরকাল। আমরা দেশের বোঝা হয়ে থাকতে চাইনা, একটি আগামী শিক্ষিত প্রজন্ম উপহার দিতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে চাই।

” বাবার স্বপ্ন ছিল মহান পেশা শিক্ষকতায় নিজেকে পরিচালিত করি, আদর্শ আর নৈতিকতায় মানুষ গড়ে তুলি। তবুও যদি আপনি দয়ার পরবশ হয়ে সহকারী শিক্ষক পদে আমাদেরকে নিয়োগ দান করেন তাহলে পরিবারে শান্তি ফিরে আসবে।”
আপনার মহান উদারতা আর মানবতার কথা মনে হলেই দু’চোখে আশার আলো চলে আসে। মনে হয় আমাদের আশা, স্বপ্ন, নিঃশেষ হয়ে যায়নি। বাবা-মা’র স্বপ্ন ভেঙ্গে যায়নি। আমাদের শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে বাবা মার হাড় ভাঙ্গা পরিশ্রম বৃথা যায়নি।”

বেকার জীবন যে কতটা কষ্টের আর ঘৃণিত তা সত্তোর্ধ্ব মায়ের চোখের দিকে তাকালে বোঝা যায়। যখন মায়ের চোখের কোণায় অজান্তে লোনাজল ছলছল করে, তখন নিজেকে সবচেয়ে নিচু জাতীর প্রাণীর চেয়েও নিকৃষ্ট মনে হয়। আমরা যে নতুন ভাবে আবেদন করে পরীক্ষা দিব সে সুযোগও নেই। লেখাপড়া শেষ করে যোগ্যতা অর্জন করতে করতে বয়স শেষ হয়ে গেছে। তাই পিছনে তাকানোর কোন উপায় নেই। এখন একমাত্র ভরসা আপনি।

আপনার বাবা জাতীর জনক
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর আমাদের গর্ব। তিনি আমাদের অহংকার। তিনি দেশের স্বার্থে জনগণের কল্যাণে ১৯৭৩ সালে প্রায় ৩৭ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়কে জাতীয়করণের মাধ্যমে দেড় লক্ষাধিক শিক্ষকের চাকরী স্থায়ীকরন করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। তেমনি
আপনি কখনও কাউকে খালি হাতে ফিরিয়ে দেননি, আমাদের কেও দিবেন না। এই ৩৭ হাজার বেকারের দু’মুঠো খাবারের ব্যবস্থা করে দিবেন- এটাই আমাদের প্রত্যাশা। উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়েও আমরা যারা আজ বেকারত্ব নামক অভিশাপে অভিশপ্ত, তাদেরকে সুন্দর একটি জীবন উপহার দিন। স্ব-সম্মানে বাঁচার জন্য, দেশের সম্পদ, পরিবারের অহংকার, সমাজের গৌরব বাড়িয়ে দিন।

মাগো- আপনার অঙ্গীকার ছিলো মুজিব শতবর্ষে কেউ বেকার থাকবে না। আপনি প্রতিটি ঘরে ঘরে সরকারি চাকরি দিবেন বলে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমরা ৩৭ হাজার পরিবার দেশের ৬১ জেলার বাসিন্দা। আপনি প্যানেলের মাধ্যমে এই ৩৭ হাজার প্যানেল প্রত্যাশীকে নিয়োগ দিলে আপনার অঙ্গীকার যেমন পূরণ হবে, অন্যদিকে দেশ হবে উচ্চ শিক্ষায়-শিক্ষিত ও বেকার মুক্ত। যেখানে প্রস্ফুটিত  হবে ৩৭ হাজার পরিবারের মুখের হাসি।

উল্লেখ্য, ‘সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০১৮’ -সারাদেশে সহকারী শিক্ষক পদে আবেদন করে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন প্রায় ২৪ লাখ চাকরী প্রার্থী। এর মধ্যে পরীক্ষায় কৃতকার্য হয়েছে ৫৫ হাজার২’শ ৯৫ জন। ৫৫২৯৫ জন পরীক্ষার্থী ভাইভা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করলেও নিয়োগ যোগদান পেয়েছেন মাত্র ১৮১৪৭ জন। এরমধ্য গাইবান্ধা  জেলায় ১৩৭৭ জন ভাইভা দিলেও প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পদায়ন পেয়েছেন ৪৮০ জন। যা চাহিদার তুলনায় অতি নগণ্য। তাই শিক্ষাক্ষাতে রয়ে যাচ্ছে চরম ঘাটতি । বিশেষ করে করোনা পরবর্তী সময়ে প্রাথমিক শিক্ষার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে, চরম শিক্ষক সংকট দূরীকরণ করতে এবং শিক্ষা কার্যক্রমকে ত্বরান্বিত করতে প্যানেল প্রত্যাশী ৩৭ হাজার ভাইভা অংশগ্রহণকারী চাকরী প্রার্থীকে নিয়োগ দানের ব্যবস্থা করে শিক্ষা ক্ষাতের ব্যাপক ক্ষতির অবসান ঘটাবেন এটাই আমরা প্রত্যাশা করছি মুজিব শতবর্ষে।

অবহেলিত ৩৭ হাজার চাকরী প্রত্যাশীদের পক্ষ থেকে আমাদেরকে প্যানেল ভুক্ত করে চাকরীর ব্যবস্থা করার জোরদাবী জানাচ্ছি এবং আপনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

পক্ষে-
মো. মিজানুর রহমান মন্ডল
সভাপতি
সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০১৮ প্যানেল প্রত্যাশী গাইবান্ধা জেলা কমিটি।

আপনার মতামত লিখুন :